প্রকল্প সমূহ

সৃজনশীল প্রশ্নের একীভূত ডাটাবেজ তৈরি
সৃজনশীল প্রশ্ন ও উত্তর তৈরির জটিল কাজকে একীভূত করার লক্ষ্যে এই প্রকল্প বাস্তবায়িত হচ্ছে। যাতে বিভিন্ন শ্রেণির সৃজনশীল বিষয়ের প্রশ্ন ও উত্তরসমূহ জনমানুষের উৎস (crowd source) থেকে নেওয়া হবে এবং পরবর্তীতে সেটা ব্যবহার উপযোগী করা হবে।
খেলাচ্ছলে পাঠ
মিথষ্ক্রিয়ার মাধ্যমে শিশুদের শেখানোর পদ্ধতি হলো ডিজিটাল বিজ্ঞান খেলা। যা আমাদের শিক্ষা ব্যবস্থাকে সনাতন ব্যবস্থা একটি আধুনিক পর্যায়ে নিয়ে যাবে। একটি অ্যাপ্লিকেশন তৈরি হবে যাতে সিলেবাসের সব বিষয় পেয়ে যাবে শিক্ষার্থীরা। খেলাচ্ছলে সবকিছু শিখে নেবে তারা।
পাটের কার্ড বানানোর উৎকৃষ্ট পদ্ধতি
ঐতিহাসিকভাবে ব্রিটিশ ও আইরিশ ম্যানুফ্যাকচারার্স দ্বারা তৈরি যন্ত্র দিয়ে পাট কারখানা পরিচালিত হয়ে আসছে। উল, সিল্ক ও সিনথেটিকসের মতো পণ্যের তৈরির ফলে এটা ক্রমান্বয়ে ইউরোপ, আমেরিকা, চাইনিজ ও ভারতীয় বিভিন্ন কোম্পানির অধীনেও চলে আসে। কম্পিউটার নিউমেরিক কনট্রোলড (সিএনসি) পদ্ধতির মাধ্যমে পাট কার্ডের নকশা ও তৈরির ক্ষেত্রে একটি আদর্শ পদ্ধতির নিয়ে এই প্রকল্পের আলোচনা।
ঔষধের বিরূপ প্রতিক্রিয়া অনলাইন রিপোর্টিং সিস্টেম
কমিউনিটি এফ এম রেডিও স্টেশন
নিজেদের কথা বলতে প্রান্তিক মানুষের হাতে নিজস্ব মাধ্যমের অনুপস্থিতির অবস্থানে দাঁড়িয়ে কমিউনিটি এফএম রেডিও স্টেশন স্থাপনের এই উদ্যোগ। এতে স্বল্প মূল্যের এফএম রেডিও স্টেশন তৈরি করা হবে। যা দিয়ে যে কোন ব্যক্তি বা ইউনিয়ন ডিজিটাল সেন্টারগুলো বিভিন্ন আবহাওয়াগত শিক্ষণীয় ও প্রশিক্ষণগত কন্টেন্ট ইউনিয়নের মতো ছোট একটি নির্দিষ্ট এলাকার মধ্যে প্রচার করতে পারবেন।
ঝিনাইদহ পৌরসভায় অনলাইনে পৌরকর ও পানির বিল প্রেরণ এবং মোবাইল ব্যাংকিং পদ্ধতিতে বিল পরিশোধ কার্যক্রম
মোবাইলে পৌর কর ও পানির বিল সংক্রান্ত তথ্য জানিয়ে মোবাইল ব্যাংকিংয়ের মাধ্যমে সে অর্থ আদায়ের জন্য এই প্রকল্প। এক্ষেত্রে গ্রাহক বিভিন্ন কর ও বিলের তথ্য এসএমএসে পাবেন আর পৌর অফিস বা ব্যাংকে না গিয়ে তা পরিশোধ করবেন মোবাইল ব্যাংকিংয়ের মাধ্যমে।
যশোর জেলায় নির্যাতিত নারী ও শিশুদের আইনি সহায়তা
যশোর জেলায় বিভিন্নভাবে নির্যাতিত নারী ও শিশুদের জন্য একটি বিশেষ মোবাইল অ্যাপ এবং পৃথক ওয়েবসাইট তৈরি করা হবে এই প্রকল্পের আওতায়। এর মাধ্যমে একটি বিশেষ গ্রুপ তৈরি করা হবে, তারা সহায়তা প্রদানে সবসময় প্রস্তুত থাকবেন।
নাগরিকদের নিবন্ধন ও যাচাইকরণে স্বল্পমূল্যের IRIS স্ক্যানার
বাংলাদেশের সব পাবলিক সার্ভিস ডেলিভারি সেন্টার বা জনসেবা প্রদান কেন্দ্রে নাগরিক নিবন্ধন ও যাচাই করে সঠিক মানুষকে সঠিক সেবা দেওয়ার প্রক্রিয়াটি এখনো চ্যালেঞ্জিং। আধুনিক বায়োমেট্রিক ডিভাইসের উচ্চমূল্যের কারণে সেটা বসানো সম্ভব নয়। এ কারণে স্বল্পমূল্যের বায়োমেট্রিক ডিভাইসের খোঁজ করা হয়। কাইটপ্লেক্স আইটি লিমিটেড (Kiteplex IT Ltd) বিশ্বখ্যাত IRIS প্রযুক্তির উপর ভিত্তি করে বাংলাদেশে ব্যবহারযোগ্য বায়োমেট্রিক ডিভাইস উদ্ভাবন করেছে। সেটাকে সেবা প্রদান কেন্দ্রে ব্যবহার উপযোগী করে গড়ে তুলতে এই প্রকল্প।
ডাক ঘরের সঞ্চয়ী ব্যাংকের সেবাগ্রহীতাদের ইউজার ইন্টারফেস
দেশের অন্যান্য ডাকঘর ও উপ-ডাকঘরের মতো যশোরেও পোস্ট বক্স ইস্যু, মৃত ব্যক্তির উত্তরাধিকার দাবী, হারানো পাশবই উদ্ধার, সঞ্চয় হিসাব যাচাই, বিকল্প পাশবই উত্তোলন, মৃত হিসাব পুনরজ্জীবিতকরণ ইত্যাদির জন্য সেবাগ্রহীতাদের প্রায়শই নিয়মিত কাউন্টার সেবা নিতে হয়। এর পাশাপাশি পাশাপাশি তাদের বিভিন্ন দাবী এবং সমস্যা সম্পর্কিত সেবা গ্রহন করবার জন্য আবেদন প্রক্রিয়ার দ্বারস্থ হতে হয়। যা নির্দিষ্ট প্রক্রিয়ায় গেলেও অনেক সময়সাপেক্ষ। এর সমাধান দিতে অনলাইন ব্যবস্থাটির উদ্ভব। যাতে বিভিন্ন আবেদন প্রক্রিয়া অনলাইনেই সম্পন্ন হবে। আবেদনের সর্বশেষ অগ্রগতি কী হলো সেটাও অনলাইনে কিংবা মোবাইল এসএমএসের মাধ্যমে জানা যাবে।
বাংলাদেশ জাতীয় জাদুঘরের ভার্চুয়াল গ্যালারি
বাংলাদেশের প্রাচীন ইতিহাস-ঐতিহ্য, শিল্পকলা, প্রাকৃতিক ঐতিহ্য এবং সমকালীন ইতিহাস অর্থাৎ মহান ভাষা আন্দোলন, জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের নেতৃত্বে মুক্তিযুদ্ধ-স্বাধীনতা সংগ্রাম, তাতে দেশের মানুষের আত্মত্যাগ, জাতীয় চারনেতার আত্মদান ও পাকিস্তান হানাদার বাহিনী ও তাদের ঘৃণ্য দোসর-বাঙালি রাজাকার, আল বদর, আল শামসদের সহায়তায় তিন লক্ষ মুক্তিকামী মানুষের গণহত্যার নিদর্শনসমূহ বাংলাদেশ জাতীয় জাদুঘরের সংগ্রহে রয়েছে। কিন্তু জাদুঘরের নির্দিষ্ট সময় এবং ঢাকায় অবস্থিত হওয়ায় সেটা দেশ-বিদেশের অনেকের কাছে পৌঁছায় না। জাতীয় জাদুঘরের নিদর্শনসমূহ যাতে মানুষের কাছে ভার্চুয়ালি যায় এবং সেটা দেখে মানুষ জাদুঘরে আসতে আগ্রহী হয় সেজন্য ভার্চুয়াল জাদুঘর প্রকল্পের উদ্ভব। এর মাধ্যমে অনলাইনের পাশাপাশি মোবাইল ফোনেও ঘরে বসে জাদুঘর দেখার সুযোগ মিলবে।
পুলিশ ক্লিয়ারেন্সের ব্যবস্থাপনা সিস্টেম
নাগরিকদের বিভিন্ন প্রয়োজনে পুলিশ ক্লিয়ারেন্স সার্টিফিকেটের প্রয়োজন হলেও সেই প্রক্রিয়া অনেক জটিল ছিল। এটাকে বর্তমানে অনলাইন আর এসএমএস সার্ভিসের আওতায় আনা হয়েছে। যাতে আগের মতো ভোগান্তির শঙ্কা কমেছে।
ই-ট্র্যাফিক প্রসিকিউশন এবং ফাইন পেমেন্ট সিস্টেম (ইটিপিএফএস)
সাধারণ মানুষের জন্য ট্রাফিক আইন লঙ্ঘন সংক্রান্ত জরিমানা প্রদান প্রক্রিয়ায় বিশৃঙ্খলা দূর করে সে প্রক্রিয়া সহজতর করার জন্য এ প্রকল্প। যাতে একটি ডিভাইস ব্যবহার করে ট্রাফিক পুলিশ সরাসরি বিআরটিএ ডাটাবেস থেকে যানবাহনের রেজিস্ট্রেশন কিংবা ড্রাইভিং লাইসেন্সের তথ্য যাচাই করবে। এক্ষেত্রে সাধারণ মানুষ জরিমানার টাকা জমা করতে পারবেন অনলাইনে বা মোবাইল ব্যাংকিংয়ের মাধ্যমে। যাতে সাধারণ মানুষকে সেবা দিতে ট্রাফিক পুলিশের দক্ষতাও বৃদ্ধি পাচ্ছে।