প্রকল্প সমূহ

সমবায় অধিদপ্তরকে দিয়ে সমবায়ীদের পণ্য বাজারজাতকরণ
মোবাইল এপ্স এর মাধ্যমে মৎস্য সংক্রান্ত পরামর্শ সেবা মৎস্য চাষীর দোড়গোড়ায় পৌঁছানো কার্যক্রম প্রমিতকরণ ।

কানেকটিং বাংলাদেশ


টেলিভিশন স্টেশন এটিএন নিউজে ‘কানেকটিং বাংলাদেশ’ অনুষ্ঠানের আরো সাধারণ গ্রামীন নারী ও কৃষককে সংযুক্ত করার জন্য নতুন এই প্রকল্প নেওয়া হয়েছে। আগে কানেকটিং বাংলাদেশ অনুষ্ঠানের স্টুডিও থেকে অনলাইনে সরাসরি যোগাযোগের মাধ্যমে গ্রামীন নারী ও কৃষকদের বিশেষজ্ঞ পরামর্শ দেওয়া হতো। এবার সেসঙ্গে নতুন আইডিয়া যুক্ত করে ইউনিয়ন ডিজিটাল সেন্টারের উদ্যোক্তাদের এতে সম্পৃক্ত করা হয়েছে। যাতে সাংবাদিকতার ন্যূনতম প্রশিক্ষণ নেওয়ার পর তারা সংবাদ বা সাক্ষাতকার পাঠাবেন। তাদের বাছাই করা সংবাদ বা সাক্ষাতকার থেকে কানেকটিং বাংলাদেশ অনুষ্ঠানে উপস্থাপিকার মুখ ঘুরে যাওয়া গ্রামীন মানুষের সমস্যার পথনির্দেশ করবেন বিশেষজ্ঞ চিকিৎসক বা কৃষিবিদ।

চিহ্নিত সমস্যা এবং প্রস্তাবিত সমাধান

বাংলাদেশের হাজার হাজার নারী, বিশেষ করে যাদের বাস গ্রামীণ এলাকায়, নানা ধরনের জটিল রোগে ভোগেন। দূরবর্তী স্থানে বসবাসের আর অর্থ ও তথ্যের অভাবে তারা প্রখ্যাত চিকিৎসকদের থেকে চিকিৎসা বা পরামর্শ পান না। এটা একই সঙ্গে কৃষি মাঠের ক্ষেত্রেও প্রযোজ্য। কৃষকরা উদ্ভিদ ও ফসলের ক্ষতির ক্ষেত্রে বিশেষজ্ঞের কাছে যাওয়ার সুযোগ পান না। বর্তমানে এটিএন নিউজের ‘কানেকটিং বাংলাদেশ’ অনুষ্ঠানের স্টুডিও থেকে তাদের মধ্য থেকে একটা অংশ বিভিন্ন পর্বে বিশেষজ্ঞ বা কৃষিবিদের পরামর্শ নিচ্ছেন। গ্রামীণ এলাকা থেকে স্টুডিও’র সঙ্গে সরাসরি সম্প্রচারের অনলাইন ব্যবস্থাপনা এক্ষেত্রে নেওয়া হয়। বর্তমান গ্রামীণ নারী/কৃষকরা সরাসরি তাদের বিভিন্ন সমস্যা নিয়ে স্টুডিওতে থাকা বিশেষজ্ঞ চিকিৎসক কিংবা কৃষিবিদের জানতে চাইতে পারেন। এরপর তিনি পেয়ে যান বিশেষজ্ঞের পরামর্শ। এটিএন নিউজ এই অনুষ্ঠানটা সপ্তাহে ৩ থেকে ৪ দিন সম্প্রচার করার বিষয়ে ভাবছে। যদিও ফান্ডের অভাবে এই মূল্যবান অনুষ্ঠান তারা সপ্তাহে একদিন সম্প্রচার করছে। আক্রান্ত গ্রামীন এলাকার সঙ্গে স্টুডিও’র অনলাইন সংযোগ তৈরির কারণে এই অনুষ্ঠানটি অনেক ব্যয়বহুল।

এটিএন নিউজ লিমিটেড ইউনিয়ন ডিজিটাল সেন্টারের উদ্যোক্তাদের অংশগ্রহণ করানোর একটি মডেল উপস্থাপন করেছে। তারা যাচ্ছে ওই উদ্যোক্তাদের অনেকটা সাংবাদিকতার আদলে প্রশিক্ষণ দিতে, যাতে তারা নিজস্ব এলাকার সংবাদ সংগ্রহ করে টিভি স্টেশনটিতে পাঠাবেন। ইউনিয়ন ডিজিটাল সেন্টার উদ্যোক্তারা তাদের কাছে থাকা প্রযুক্তি দিয়ে লেখায়, অডিও অথবা ভিডিওতে এই সংবাদ তৈরি করতে পারবেন। এটিএন নিউজ এর মাধ্যমে স্থানীয় সংবাদের একটি বিশাল ভাণ্ডার পাবে, যদিও এর আগেও তারা চাইলে সেটা করতে পারতেন। কিন্তু অনেক অর্থ খরচের ব্যাপার থাকায় সেখান থেকে প্রতিষ্ঠানটিকে পিছিয়ে আসতে হয়। ইউনিয়ন ডিজিটাল সেন্টারের উদ্যোক্তারা প্রশিক্ষিত হওয়ার পর গ্রামীণ নারী ও কৃষকদের স্বাস্থ্য ও ফসল সংক্রান্ত বিষয়ে সাক্ষাতকার নিবেন এবং পাঠাবেন এটিএন নিউজে। তাদের পাঠানো এই সংবাদের জন্য পৃথক একটি সার্ভার ব্যবহার করা হবে। এরপর সেটা বাছাইয়ের পর মুন্নী সাহা কানেকটিং বাংলাদেশ অনুষ্ঠানে সেটা চিকিৎসক বা কৃষিবিদের কাছে তুলে ধরবেন। এটিএন নিউজ মনে করছে, অনুষ্ঠানটির অনেক সম্ভাবনাময় দিক রয়েছে, যদি এর পর্ব আরও বাড়ানো যায় এবং স্থানীয় নাগরিক সাংবাদিকদের দিয়ে সাধারণ মানুষের কথাকে একীভূত করা যায়। পুনরায় সাংবাদিকতার প্রশিক্ষণ নিয়ে ইউনিয়ন ডিজিটাল সেন্টারের উদ্যোক্তারা দক্ষতার নতুন জায়গায় উন্নীত হবেন এবং নতুন স্থানীয় সাংবাদিক হয়ে অর্থও উপার্জন করতে পারবেন।