প্রকল্প সমূহ

বাংলাদেশ ট্যুরিজম অ্যাপ
জয়: নারী ও শিশুর বিরুদ্ধে সহিংসতা প্রতিরোধে একটি আইসিটি ভিত্তিক টুল

নারায়ণগঞ্জ সিটি কর্পোরেশনের সম্পত্তি ব্যবস্থাপনার স্বয়ংক্রিয় সিস্টেম


নারায়ণগঞ্জ সিটি কর্পোশনের প্রায় ভূমিতে প্রায় ৪৫০০ লিজগ্রহীতা বা ভাড়াটিয়া রয়েছেন। আবার নগরবাসীকে কবরস্থান বা শ্মশানের সিটি কর্পোরেশনের অধীন জায়গা থেকে সেবা নিতে হয়। কিন্তু সেবাগ্রহীতাগণ নানা প্রকারের বিড়ম্বনার শিকার হন এবং এক্ষেত্রে তাদের শ্রম, অর্থ ও সময় নষ্ট হয়। এজন্য নারায়ণগঞ্জ সিটি কর্পোরেশনের জমি অটোমেশন সিস্টেমের উদ্যোগ নেওয়া হয়েছে। যাতে ঘরে বসে অনেক সেবা পাবেন নগরবাসী।

চিহ্নিত সমস্যা এবং প্রস্তাবিত সমাধান

নারায়ণগঞ্জ সিটি কর্পোরেশনের তিনটি অঞ্চলে নিজস্ব ভূমিতে প্রায় ৪৫০০ লিজ গ্রহীতা বা ভাড়াটিয়া রয়েছেন। যারা ওই যদিতে দোকান, পুকুর ও স্পেস বরাদ্দ ও ভাড়া নিয়ে থাকেন। প্রতি বছর এসব লিজ নবায়ন, মালিকানা পরিবর্তন ও ভাড়া পরিশোধের জন্য লিজ গ্রহীতা/ভাড়াটিয়া/জনগণ সিটি কর্পোরেশনে আসেন। ভূমি সংক্রান্ত অনাপত্তি পত্র হিসাবে প্রতি মাসে প্রায় ১৫০-২০০টি আবেদন জমা হয়। এছাড়া প্রায় ৩০টি কবরস্থান ও শ্মশান রয়েছে, যেখানে প্রতি বছর প্রায় ১৫০০-২০০০ লোকের কবর কিংবা দাহ কার্য সম্পাদন করা হয়। মৃত ব্যক্তিকে কবর দেয়ার জন্য কবরস্থানের জায়গা নির্ধারণ করতে সংশ্লিষ্ট জনগণ সিটি কর্পোরেশনে আসেন। এসব সেবা দানের প্রকৃতি সনাতন হওয়ার কারণে সেবাগ্রহীতাগণ নানা প্রকারের বিড়ম্বনার শিকার হন এবং এক্ষেত্রে তাদের শ্রম, অর্থ ও সময় নষ্ট হয়। এক্ষেত্রে আধুনিক প্রযুক্তিনির্ভর কোন সেবাপদ্ধতি না থাকায় সিটি কর্তৃপক্ষ কাঙ্খিত ও সময়োপযোগী সেবা প্রদানে সমস্যার সম্মুখীন হয়।

অনলাইনভিত্তিক সফটওয়্যারের মাধ্যমে সকল তথ্য সরবরাহ, ঘরে বসে আবেদন করার প্রক্রিয়া, অনলাইন, মোবাইল কিংবা ব্যাংকের মাধ্যমে পেমেন্ট প্রক্রিয়া, নিয়মিত বিরতিতে তথ্য হালনাগাদকরণ। আবেদন গ্রহণ বা বাতিল এবং প্রাপ্য সেবা প্রস্তুত হওয়ার ইমেইল ও এসএমএস প্রেরণ।